শিরোনাম ::
সামাজিক সংহতি ও শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত উখিয়ার রাজা পালং মাদ্রসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠিত মুক্তি কক্সবাজারের উদ্যোগে উখিয়ায় নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত ফ্রেন্ডশিপের প্রশিক্ষণে চ্যাম্পিয়ন ভালুকিয়া পালং উচ্চ বিদ্যালয়ের নারী ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত সীমান্তে গুলির শব্দ থামছে না
বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:০৭ অপরাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

ঘরোয়া ক্রিকেটের মান বাড়ানোর তাগিদ

প্রতিবেদকের নাম:
আপডেট: সোমবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২১

ক্রীড়া ডেস্ক:
জাতীয় দলের জন্য শক্ত পাইপলাইন তৈরির লক্ষ্যে কাজ করছেন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের কোচ নাভিদ নাওয়াজ। ধরে রাখতে চান যুব বিশ্বকাপের শিরোপাও। তবে, যুব ক্রিকেটারদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাফল্য পেতে হলে ঘরোয়া ক্রিকেটে কাঠামোর মান বাড়ানোর ব্যাপারে তাগিদ দিয়েছেন যুব বিশ্বকাপজয়ী বাংলাদেশ দলের এই কোচ।

তাই প্রত্যাশাটাও অন্য যে কোনো সময়ের চাইতে বেশি; আর সেই চাপটাও জানেন কোচ নাভিদ নাওয়াজ। তবে শিরোপা ধরে রাখার ব্যাপারে আশাবাদী যুবাদের কোচ নাভিদ নাওয়াজ। তিনি বলেন, এবারের বিশ্বকাপেও আমাদের লক্ষ্য থাকবে শিরোপা। করোনার কারণে প্রস্তুতি ভালো হয়নি। তবে যেটুকু সময় আছে সেটুকু কাজে লাগাতে চাই। অলরাউন্ডারদের ভালো কম্বিনেশন আছে আমাদের দলে।

২০২০ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ দল বিশ্বজয়ের স্বাদ প্রথম এনে দিয়েছে বাংলাদেশকে। সেনউইস পার্কে সেদিন গর্বের সাথে উড়েছিল লাল-সবুজের বিজয় নিশান। আকবর-রকিবুল-শামীমদের কল্যাণে ম্যান্ডেলার দেশের একটা প্রান্ত পরিণত হয়েছিল এক টুকরো বাংলাদেশে। আগামী বিশ্বকাপে বাংলাদেশ যাচ্ছে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে।

অনূর্ধ্ব-১৯ দলের খেলোয়াড়েরা একটা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে বেড়ে ওঠেন। যে প্রক্রিয়ার উদ্দেশ্য হচ্ছে, জাতীয় দলের জন্য একটি শক্ত ব্যাকআপ তৈরি করা এবং দেশের ক্রিকেটের পাইপলাইনকে মজবুত করা। কোচ নাভিদ নাওয়াজ বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য থাকে জাতীয় দলের জন্য ক্রিকেটার তৈরি করা। এখান থেকে ভালো করে তারা যেন দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারে সেভাবেই নার্সিং করা হয় তাদের।

করোনার কারণে প্রস্তুতি খুব বেশি ভাল না হলেও ভারতের মাটিতে ট্রফি জয় ভরসা দিচ্ছে বাংলাদেশকে। সামনে যুব এশিয়া কাপ এবং বিশ্বকাপে ভাল করবে দল, ভরসা নাভিদ নাওয়াজের ।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বজয়ী দলের সদস্য শামীম পাটোয়ারী এরই মধ্যে খেলছেন জাতীয় দলে। কিন্তু যুব ক্রিকেট এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের মধ্যে যে ব্যবধানটা বহুগুণ তা হারে হারে টের পাচ্ছেন চাঁদপুরের এই তরুণ। এক্ষেত্রে নিম্নমানের ঘরোয়া ক্রিকেট কাঠামোকে দায়ী করেছেন বাংলাদেশ যুব দলের কোচ। তিনি বলেন, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ক্রিকেটাররা জাতীয় দলে গিয়ে ভালো করতে না পারার কারণ ঘরোয়া টুর্নামেন্ট। এখানে ভালো পিচে খেলা হয় না। সেই সাথে ভালো মানের প্রতিযোগিতামূলক আসর খুব কম হয়। ঘরোয়া কাঠামো ঠিক হলে এই সমস্যা থাকবে না।


আরো খবর: