রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১০:৩৩ অপরাহ্ন

ক্ষুব্ধ প্রধানমন্ত্রী বললেন, হুমকি দেয়াটা বাড়াবাড়ি

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ১৪, ২০১৮ ৯:১০ অপরাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ১৪, ২০১৮ ৯:১০ অপরাহ্ণ

সরকারি নিয়োগে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপনের দাবিতে আন্দোলনরতদের দফায় দফায় সড়ক অবরোধে ও আলটিমেটামে ক্ষোভ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কোটা নিয়ে সিদ্ধান্ত তো আগেই দিয়েছি।বলেছি কোটা থাকবে না। এরপরও আন্দোলনের হুমকি আর আল্টিমেটাম দেয়া হচ্ছে। এর কোনো যুক্তি নেই।

সোমবার (১৪ মে) সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর অনানুষ্ঠানিক আলোচনায় এসব কথা বলেন তিনি। সচিবালয়ে প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়

শেখ হাসিনা বলেন, সিদ্ধান্ত যখন দিয়েছি, এটা আমরা করবো। কিন্তু এখনই এটা করতে হবে? এ জন্য তো সময় লাগবে। কোটার বিষয়টি বাস্তবায়ন করতে সময় লাগবে। তারপরও হুমকি দেয়াটা বাড়াবাড়ি।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন একাধিক মন্ত্রী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সূত্র জানায়, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, কোনো কোনো মহল কোটার বিষয় নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। এটা দ্রুত করা যায় কি না সে বিষয়ে একটু ভাবা দরকার। কারণ, এর সমাধানের বিষয়টি তো আপনিই দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী আজ সোমবার সকাল থেকে ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ করে প্রজ্ঞাপনের দাবিতে বিক্ষোভ করছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। দুপুরের দিক থেকে শাহবাগ মোড়েও অবরোধ করেছেন তারা।

বৈঠকে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের বিষয়টি উঠে আসে। এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমালোচনা করছে করুক। যৌক্তিক কোনো সমালোচনা থাকলে করতে পারে। কিন্তু বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে কেন? এ স্যাটালাইটের মালিকানা সরকার ছাড়া অন্য কারও হওয়ার সুযোগ নেই।

এ সময় তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন। তারা বলেন, বাংলাদেশ টেলিভিশনের সম্প্রচারের জন্য বাইরে টাকা দিতে হতো। এতে প্রচুর পয়সা ব্যয় হতো। এখন সে টাকা আমাদের সাশ্রয় হবে। বিএনপি নেতারা টেকনিক্যাল বিষয়গুলো না বুঝে আন্দাজে কথা বলছে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::