শিরোনাম :
কক্সবাজারে ১৬৪ নমুনা পরীক্ষায় ১৩ জন করোনা পজেটিভ আইএমএফ এর ইকোনোমিস্ট হলেন রামুর সন্তান অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব আবদুল মন্নান ইয়াবা পাচারকালে চট্টগ্রামে উখিয়ার যুবকসহ গ্রেফতার ২ টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ এলাকায় ৮ হাজার ইয়াবাসহ ১ রোহিঙ্গা আটক রোহিঙ্গা ক্যাম্প হতে দেশীয় তৈরি অস্ত্র ও বুলেট উদ্ধার করোনায় উখিয়ায় বোরো ধান সংগ্রহ লক্ষ্যমাত্রা পূরণে ব্যর্থ কোভিড পরীক্ষার ফি আরোপ ‘মরার উপর খারার ঘা’ দ্রুত বাতিলের দাবি চট্টগ্রাম ক্যাবের টেকনাফে রেজিস্ট্রার ক্যাম্পের এপিবিএন পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ আটক ১ রামুতে মিলিটারী পুলিশের হাতে ইয়াবাসহ মাদক পাচারকারী আটক উখিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ আটক ১
রবিবার, ০৫ জুলাই ২০২০, ০৮:৫০ পূর্বাহ্ন

কৃষ্ণানন্দধামের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: ডিসেম্বর ২, ২০১৯ ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: ডিসেম্বর ২, ২০১৯ ৮:০৮ পূর্বাহ্ণ

ভোটার তালিকায় জীবিতরা ছিল মৃত আর মৃতরা জীবিত

বার্তা পরিবেশক::

সদ্য সমাপ্ত কক্সবাজার সার্বজনীন শ্রীশ্রী কৃষ্ণানন্দধামের কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন নিয়ে নানা অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। শুধু তাই নয় নানা অসংগতিপূর্ণ এই নির্বাচন নিয়ে সনাতনী সম্প্রদায়ের মাঝে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

আর এসব অভিযোগের কারণে উক্ত নির্বাচন বাতিল করে নতুন করে নির্বাচনের দাবী জানিয়েছেন একাধিক প্রার্থী, দাতা ও আজীবন সদস্যরা।

তাছাড়া উক্ত নির্বাচনের নানা অসংগতি তুলে এনে নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাচন কমিশনার অধ্যাপক পৃথি¦রাজ সাহা বরাবরে লিখিত আবেদনও জানিয়েছেন অনেক আজীবন সদস্য।

যার অনুলিপি প্রদান করা হয়েছে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ, সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও শ্রীশ্রী কৃষ্ণানন্দধাম কার্যনির্বাহী পরিষদের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক বরাবরে।

অভিযোগে জানা যায়-গত ২৯ নভেম্বর দুপুর ২টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয় পর্যটন শহর কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহি সার্বজনীন শ্রীশ্রী কৃষ্ণানন্দধাম কার্যনির্বাহী পরিষদের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন। কিন্তু এর আগে সকালে অনুষ্ঠিত হয় ত্রি-বার্ষিক সাধারণ সভা।

উক্ত সাধারণ সভায় দাতা ও আজীবন সদস্যদের মাঝে দেওয়া আয়-ব্যয়ের হিসাব পাশ করা হয়নি পাশাপাশি ভোটার তালিকা সংশোধনও করা হয়নি। সে ভোটার তালিকায় অনেক জীবিতদের দেখানো হয়েছে মৃত আর মৃতদের দেখনো হয়েছে জীবিত। শুধু তাই নয় সাধারণ সভার সিদ্ধান্ত ছাড়াই নির্বাচন কমিশনারও নিয়োগ দেয়া হয়। ভোট চলাকালীন প্রত্যয়ন পত্রের নামে কাগজ দিয়ে দেয়া হয় জাল ভোট দেয়ার সুযোগ।

এসব ছাড়াও ভোটের আগের দিন রাতে নির্বাচিতদের ক্রমিক নম্বরের তালিকা বিভিন্ন ভোটারের হাতে পৌঁছে দেয়া হয়। তাই এ ধরণের প্রহসন ও অসংগতিপূর্ণ নির্বাচন বাতিল করে পুনরায় নির্বাচনের দাবী উঠেছে সর্ব মহল থেকে।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::