শিরোনাম ::
উখিয়ায় মাদক প্রতিরোধ ও অপরাধ দমনে কমিউনিটি পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত একসঙ্গে ৪ সন্তান জন্ম দিলেন মহেশখালীর এক গৃহবধূ! বান্দরবানের দুর্গম অঞ্চলে ঝরে পড়া শিশুদের জন্য উদ্বোধন শিশু প্রতিভা বিকাশ কেন্দ্রের বান্দরবান দুই শতাধিক প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প উখিয়ায় পালস’র উদ্যোগে বিশ্ব শান্তি দিবস পালিত সীমান্তে গুলির শব্দ থামছে না উখিয়ায় প্রশাসনের অভিযানে ৩টি ড্রেজার মেশিন ও ২টি বন্দুকসহ অস্ত্র উদ্ধার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারো খুন মুক্তি কক্সবাজার-এর উদ্যোগে ব্যবসায়ী ও উপকারভোগীদের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত পালস-এর উদ্যোগে “বর্ণবাদ-শান্তি ও সম্প্রীতির অন্তরায়” বিষয়ক বির্তক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত
সোমবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৪৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

করিমের ১৯১ভরি অবৈধ স্বর্ণ পাচার রুখে দিলো র‍্যাব-১৫ সদস্যরা

ইমরান আল মাহমুদ,উখিয়া
আপডেট: বৃহস্পতিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২২

ইমরান আল মাহমুদ,উখিয়া:
কক্সবাজারের উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ অবৈধ স্বর্ণ সহ এক চোরাকারবারিকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-১৫ সদস্যরা। গ্রেফতার চোরাকারবারি টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়নের মনিয়াঘোনা এলাকার ঠান্ডা মিয়ার ছেলে করম আলী প্রকাশ করিম(৩৭)।

বৃহস্পতিবার(১৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টায় সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন র‍্যাব-১৫ অধিনায়ক লে. কর্ণেল খায়রুল ইসলাম সরকার।

তিনি বলেন,১৬ ফেব্রুয়ারি সকালে র‍্যাব-১৫ সদস্যারা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে যে, একটি সংঘবদ্ধ চক্র সরকারী শুল্ক ফাঁকি দিয়ে অবৈধ স্বর্ণ চোরাচালানের মাধ্যমে পার্শ্ববর্তী দেশ মায়ানমার থেকে উখিয়া উপজেলার পালংখালী সীমান্তবর্তী এলাকা দিয়ে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে পাচার করবে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে র‍্যাব-১৫ এর একটি চৌকষ আভিযানিক দল পালংখালী এলাকায় বিশেষ কৌশলে চেকপোস্ট স্থাপন করে তল্লাশী অভিযান শুরু করে। তল্লাশীর একপর্যায়ে একজন ব্যক্তি চেকপোস্টের সামনে আসলে তার আচরণ ও গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হয় এবং দ্রুত চেকপোস্ট এলাকা থেকে পালানোর চেষ্টা করে। পালানোর সময় র‍্যাব ১৫ এর আভিযানিক দল তাকে আটক করে এবং পলায়নের কারণ জিজ্ঞাসা করে। জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত ব্যক্তি বিভিন্ন অসংলগ্ন কথাবার্তা বলে ও সন্দেহজনক আচরণ করে এবং সে জানায় তার পরিচয় করম আলী প্রকাশ করিম (৩৭)।

র‍্যাব-১৫ অধিনায়ক আরও জানান,ধৃত ব্যক্তির দেহ তল্লাশী করে ৬টি স্বর্ণের বার,৪টি নেকলেস, ৩৩টি গলার চেইন, ১৭টি চুড়ি, ৩৫জোড়া কানের দুল, ১৫টি লকেট, ১২টি নাকফুল, ১৬টি আংটিসহ ১৯১ ভরি ৬ আনা স্বর্ণালংকার পাওয়া যায়, যার আনুমানিক বাজার মূল্য ১কোটি ২৬লাখ ০৯ হাজার ৪শ ৫৯ টাকা। উদ্ধারকৃত স্বর্ণের বার ও অলংকারের বিষয়ে তার নিকট বৈধ কাগজপত্র দেখতে চাইলে সে তা দেখাতে ব্যর্থ হয়।

গ্রেফতার চোরাকারবারির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ প্রক্রিয়াধীন বলে জানান তিনি।


আরো খবর: