শিরোনাম :
দশ টাকায় অ্যাকাউন্ট খুলে নেওয়া যাবে সরকারি সহায়তা আমার গাওয়া গানগুলো বিকৃত না করে যত্নে রাখবেন ক্রীড়াঙ্গনেও স্মরণীয় হয়ে থাকবেন এন্ড্রু কিশোর পাকিস্তান থেকে ৮ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে পর্যটকশূণ্য কক্সবাজার সৈকতে ভেসে আসছে স্বর্ণ, খুঁজতে ভীড় করছে মানুষ কক্সবাজারে ১৫৯ নমুনা পরীক্ষায় ৩৭ জন করোনা পজিটিভ রাধিকাপুর থেকে মোংলা বন্দরে রেল সংযোগ হচ্ছে : নৌ প্রতিমন্ত্রী বান্দরবানে আওয়ামীলীগ কর্মী অপহরণের ৪ দিনের ব্যবধানে আবারো নিখোঁজ ১ ত্রিপুরা জেলায় স্বস্তির বৃষ্টি পেয়ে আমন ধানের বীজতলা তৈরিতে ব্যস্ত কৃষক লাদাখে উত্তেজনার মধ্যেই পাকিস্তানকে সশস্ত্র ড্রোন দিচ্ছে চীন
মঙ্গলবার, ০৭ জুলাই ২০২০, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন

উপকুলের বদরখালীতে রমরমা মাদকের হাট বিপদগামী হচ্ছে যুবসমাজ ; দেখার কেউ নেই

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: জুন ১১, ২০১৯ ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: জুন ১১, ২০১৯ ১১:৪২ পূর্বাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদক,চকরিয়া::

চকরিয়া উপজেলার উপকূলীয় জনপদ বদরখালীতে জমজমাট হয়ে উঠেছে মাদক বেচাকেনার হাট। পাশাপাশি থেমে নেই জুয়ার আসরের অবাধ বাণিজ্য। প্রশাসনের ধীরেচলো নীতির সুযোগে এলাকার বিভিন্ন স্পটে গড়ে উঠছে এসব মাদকের আখড়া। এ অবস্থার কারনে নিত্যদিন মাদকের আখড়া ও জুয়ার আসর লাগোয়া সড়কে যাতায়াত করতে গিয়ে যুবসমাজের পাশাপাশি স্কুল ও কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থীরা তরুণরা বিপদগামী হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন এলাকার সচেতন মহল।
স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন, বদরখালী পুলিশ ফাড়িঁর লোকজন নানা কৌশলে এসব মাদকের আখড়া ও জুয়ার আসর থেকে নিয়মিত বখরা আদায় করেন। সেই কারনে এসব অনৈতিক কর্মকা- বন্ধে পুলিশের এ্যাকশন একেবারে নেই বলে চলে। ফলে দিনের পর দিন অভিযুক্ত মাদক বব্যসায়ারী ধরাচোয়ার বাইরে থেকে চালিয়ে যাচ্ছে রমরমা মাদক বাণিজ্য।
স্থানীয় লোকজনের দাবি, বর্তমানে বদরখালী ইউনিয়ন নেশার রাজ্যে পরিণত হচ্ছে দিন দিন। যুব সমাজ উঠতি বয়সের ছেলেদের পাশাপাশি স্কুল কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীরা হাত বাড়ালে পাচ্ছে ইয়াবা, গাঁজা, ফেন্সিডিল, হেরোইন, চোলাই মাদকসহ সবধরণের মাদক। এসব মাদকদ্রব্য সহজে হাতের নাগালে পেয়ে যুব সমাজ ধাবিত হচ্ছে ধবংসের ধারপান্তে। অবশ্য ইতোমধ্যে পুলিশের অভিযানে মদ, গাঁজাসহ কয়েকজন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতারের পর কারাগারে প্রেরণ করলেও তারা জামিনে এসে আবারও জড়িয়ে পড়ছে মাদক ব্যবসায়।
এলাকাবাসি অভিযোগ তুলেছেন, বদরখালীর আলোচিত মাদক কারবারী জিয়াবুল করিম মাধ্যমে পুরো উপকুলীয় জনপদে মাদকের অবাধ বাণিজ্য ছড়িয়ে পড়েছে। তার আখড়ায় প্রায় প্রতিদিন মাদকসেবী লোকজনের আনা-গোনা বেড়েছে। জিয়াবুল করিমের পাশাপাশি তার স্ত্রী রহিমা বেগম কক্সবাজার থেকে মাদক পরিবহনে কাজ করেন বলে এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে। এমনকি তাঁর পরিবারের অনেকে এ অনৈতিক বাণিজ্যে জড়িত আছেন বলে দাবি করেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।
চকরিয়া থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান বলেন, মাদকের ব্যাপারে জড়িতদেরকে কোন ধরণের ছাড় দেয়া হবেনা। ইতোমধ্যে পুলিশের অভিযানে একাধিক মাদক কারবারী আটক ও বিপুল পরিমাণ মাদক জব্দ করা হয়েছে। নতুন করে কেউ মাদক কারবারে জড়িত আছে সেইধরণের অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। #

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::