শিরোনাম :
বাঁধ মেরামতে স্বস্তি পাচ্ছে কুতুবদিয়ার মানুষ কক্সবাজারে স্মার্ট ফোনের বাজার শুল্কফাঁকিতে আনা অবৈধ মোবাইলের দখলে কক্সবাজারে অর্ধশতাধিক সেবা প্রার্থীকে পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট বিতরণ করলেন পুলিশ সুপার রামু থানা পরিদর্শন ও মাস্ক বিতরণ করলেন জেলা পুলিশ সুপার মোঃ হাসানুজ্জামান টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ প্রতিরক্ষা বেড়িবাঁধ পরিদর্শনে পানি সম্পদ সংসদীয় কমিটির সদস্য এমপি শাওন বিবিসি ১০০ নারীর তালিকায় রামুর মেয়ে রিমা সুলতানা রিমু কক্সবাজারে ৫ রেস্টুরেন্টেকে লক্ষাধিক টাকা জরিমানা কক্সবাজারে নারীর পেটে মিলল ৩ হাজার ইয়াবা : ডিএনসি‘র পৃথক অভিযানে আটক-৪ টেকনাফে ২০হাজার ইয়াবা উদ্ধার করল বিজিবি পেকুয়ায় ব্যক্তিগত অর্থায়নে কালভার্ট ও সড়ক সংস্কার
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৩:০৩ পূর্বাহ্ন

উখিয়া ভয়াবহ লোডশেডিং অতিষ্ঠ মানুষ : মেঘ দেখলে বিদ্যুৎ উধাও

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: মে ১০, ২০১৮ ১০:০০ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: মে ১০, ২০১৮ ১০:০০ পূর্বাহ্ণ

অাকাশে মেঘ কিংবা সামান্য বৃষ্টি বাতাসেই কক্সবাজার উখিয়া বিদ্যুৎ উধাও হয়ে যায়। দীর্ঘ তিন চার ঘন্টা পর আবার তার দেখা মেলে। রাত্রে একবার বিদ্যুৎ গেলে আসে পরের দিন। তীব্র তাপদাহে এই বিদ্যুৎ বিভ্রাটে তাই দুর্ভোগে আছে কক্সবাজারেরর উখিয়া উপজেলাবাসী।

চলতি ইরি-বোরো মৌসুমের শুরু থেকেই উখিয়া উপজেলায় বিদ্যুৎ বিভ্রাট শুরু হয়। তবে ধানকাটা মৌসুম শেষে এখনো পর্জন্ত নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে সহ্মম হচ্ছেনা বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ। স্বাভাবিক অবস্থাতেও প্রতিদিন দিনে রাতে শুধু উখিয়া শহর এলাকাতে চার পাঁচবার এক থেকে চার ঘন্টা পর্জন্ত লোডশেডিংজনিত বিদ্যুৎ বিভ্রাট সংঘটিত হচ্ছে।

এছাড়া মেঘ বৃষ্টি-ঝড়ে চার পাঁচ ঘন্টা পর্জন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বিঘ্নত হচ্ছে। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতাধীন গ্রাম গুলোতে বিদ্যুৎ সংকট আরো মারাত্মক। এদিকে কক্সবাজরের উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং হলদিয়াপালং রত্নাপালং রাজাপালং পালংখালী থাইয়ংখালী বিভিন্ন গ্রামগুলোতে খোলা তারে বাঁশ ও গাছের সাথে বিদ্যুৎ লাইন সংযোগ দিয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ভাবে বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত রাখা হয়েছে।

ফলে এসব এলাকায় সামান্য বাতাসেই এবং ঝড়-বৃষ্টিতে ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকছে। আবার উখিয়া উপজেলার কোথাও কোথাও ঘরের চাল এবং ভবনের ছাদ ঘেষে ৩৩ হাজার ভোল্টেজের উচ্চমাত্রার বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন নেওয়া হয়েছে। ভুক্তভোগীরা জানান অন্ধকারে কাটাতে হয় অনেক সময়। গুরুত্বপূর্ণ অফিস, আদালত, স্কুল, কলেজ, বিভিন্ন কারখানায় সময় মতো বিদ্যুৎ না থাকায় লেখাপড়া ও কাজের ভুগান্তি পোহাতে হচ্ছে চরম মাত্রায়।

হ্মুব্ধ স্থানীয়রা অভিযোগ করে বলেন, নির্দিষ্ট সময়ে লোডশেডিং হলে আমরা আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে থাকতে পারতাম। কিন্তু এভাবে লোডশেডিং চলতে থাকলে বিদ্যুৎ সংযোগ না থাকায় ভালো। উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নতি কখন হবে জানতে চাইলে এব্যাপারে কক্সবাজরের উখিয়া উপজেলার বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারেনি।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::