শিরোনাম ::
চকরিয়া কলেজ মাঠে ফাইতং ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন কোম্পানির জানাজা রামুতে রান্নাঘরে রাতের খাবার খাওয়ার সময় পাহাড় ধ্বসে একই পরিবারের ৪ জনের মৃত্যু আগামী নির্বাচনে কক্সবাজারে নৌকায় ভোট চাইলেন প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারে ২৯ প্রকল্পের উদ্বোধন ও ৪ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী সংঘাত নয়, আমরা সমঝোতায় বিশ্বাসী -প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানিয়ে কক্সবাজারে স্মরণকালের বৃহত্তম মিছিল- শোডাউনে এমপি জাফর চকরিয়ায় ডাকাতির প্রস্ততিকালে ২ ডাকাত গ্রেফতার, দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার জীবনের শেষমুহুর্তে হলেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করতে চান চকরিয়ার মুজিবপ্রেমি জাফর কক্সবাজারে নৌকার আদলে জনসভার মঞ্চ, থাকছে ৫ স্তরের নিরাপত্তা জনসভার এক দিন আগেই কক্সবাজারে আ.লীগের নেতাকর্মীরা
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৫২ পূর্বাহ্ন
নোটিশ::
কক্সবাজার পোস্ট ডটকমে আপনাকে স্বাগতম..

উখিয়ার রাজা পালং মাদ্রসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে নানা অভিযোগ, তদন্ত কমিটি গঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক :
আপডেট: মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২২

উখিয়া রাজাপালং মাদ্রাসা দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রে শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্রের খাতায় দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকরা অসদুপায় অবলম্বন করার গুরুতর অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি জানাজানি হলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
এ সংক্রান্ত বিষয় উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ করা হলে বিষয়টি তদন্ত করার জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ভারপ্রাপ্ত বদরুল আলম কে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত টিম গঠন করা হয়েছে বলে দায়িত্বশীল সূত্রে নিশ্চিত হওয়া গেছে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে , চলতি দাখিল পরীক্ষায় রাজাপালং মাদ্রাসা কেন্দ্রে ১২ টি মাদ্রাসার ৬৮৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।
আব্দুল্লাহ আল ফারুক নামের একজন অভিভাবক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত এক অভিযোগে উল্লেখ করেছেন , চলতি দাখিল পরীক্ষায় রাজাপালং মাদ্রাসা কেন্দ্রে দায়িত্বপ্রাপ্ত শিক্ষকরা এমসিকিউ খাতা বাহিরে এনে উত্তরপত্র ভরাট করে কক্ষে নিয়ে পরীক্ষার্থীদেরকে সঠিক উত্তর শিখিয়ে দিচ্ছে।
কেন্দ্র সচিব সহ ৩ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমসিকিউ খাতায় অসদুপায় অবলম্বনের সরাসরি অভিযুক্ত করা হয়েছে।
কেন্দ্র সচিব মাওলানা আব্দুল হক সাংবাদিকদের জানান, পরীক্ষায় অনিয়ম বা অসদুপায় অবলম্বন সংক্রান্ত যে অভিযোগ করা হয়েছে সেটির কোন অস্তিত্ব নেই । পরীক্ষার হল থেকে এমসিকিউ খাতা বের করা হয়েছে এমন প্রমাণ কেউ দিতে পারবে না । মূলত একটি মহল মাদ্রাসার ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য উপজেলা প্রশাসনের নিকট বিভ্রান্তকর অভিযোগ করেছে।
তদন্তের টিমের প্রধান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ভারপ্রাপ্ত বদরুল আলম জানান পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয়টি স্পর্শকাতর । তাই তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোন কিছু বলা সম্ভব নই।
সচেতন নাগরিক সমাজ ও অভিভাবক মহল বিষয় খতিয়ে দেখার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার নিকট দাবি জানিয়েছেন।


আরো খবর: