তারিখ: বৃহস্পতিবার, ১২ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Share:


জেরুসালেম, ০১ ডিসেম্বর – যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরায়েলের ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তারা আজ রোববার এক বৈঠক করেছেন। ওই বৈঠকে তারা ইরানের হুমকি নিয়ে আলোচনা করেছেন বলে ইসরায়েল সামরিক বাহিনীর সূত্রের বরাতে তুরস্কের বার্তা সংস্থা আনাদোলু তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

ইসরায়েল সামরিক বাহিনীর ওই সূত্র নাম প্রকাশ না করার শর্তে এই খবর জানালেও তিনি এ নিয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য জানাননি। তবে ইসরায়েলের দৈনিক হারেৎজে আমোস হারেলের লেখা একটি নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। তাতে তিনি দুই দেশের সামরিক কর্মকর্তাদের এই বৈঠকের সারাংশ জানিয়েছেন।

আমোস হারেল বলছেন, ইসরায়েল এবং যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক কর্মকর্তারা ইরান নিয়েই মূলত বৈঠকে আলোচনা করেছেন। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ জেনারেল মার্ক মিলি এবং ইসরায়েলের চিফ অব স্টাফ আবিব কোশাভি।

হারেলের লেখা ওই নিবন্ধ অনুযায়ী, ইসরায়েল মনে করছে যুক্তরাষ্ট্র ইরান ইস্যুটি নিয়ে আপাতত কোনো সামরিক পদক্ষেপ নিচ্ছে না। অপরদিকে যুক্তরাষ্ট্র ভাবছে ইসরায়েল একতরফাভাবে তেহরানের বিরুদ্ধে হামলা ও সামরিক অভিযান শুরু করবে। ফলে ওয়াশিংটনকে আরও একটি যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে বাধ্য হতে হবে।

নিবন্ধ লেখক হারেল সতর্ক করে বলেছেন, ইরান ইস্যু নিয়ে ইসরায়েল ভেতরে যে হইচই শুরু হয়েছে তা বন্ধ করা এখনই সম্ভব নয়, বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর বিরুদ্ধে সদ্য ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ এবং একবছরে দুই দুইবার নির্বাচন হওয়ার পরও সরকারে গঠনে তার ব্যর্থ হওয়ার সময়ে।

ইসরায়েলের নতুন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নাফতালি বেনেট তার স্বল্প মেয়াদের মন্ত্রিত্বকালীন সময়ে রাজনৈতিকবাবে ইসরায়েলের গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে পদক্ষেপ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। হারেল তার লেখায় সেই বিষয়টিরও উল্লেখ করে বলেছেন, এসব বিষয় ইরানে ইসরায়েলের সম্ভাব্য হামলারই ইঙ্গিত দিচ্ছে।

সূত্র : জাগো নিউজ
এন এইচ, ০১ ডিসেম্বর




Share:
error: কপি করা নিষেধ !!