শিরোনাম :
উখিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাচন কমিশনের জরুরী সভা অনুষ্ঠিত চকরিয়ায় বন বিভাগের অভিযানে ৪০ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, ২ একর জমি উদ্ধার ইয়াবা উদ্ধার: কক্সবাজারের ২জনসহ ৪ কারবারির ১০ বছরের কারাদণ্ড জাহাঙ্গীর মেচসহ দুই রেস্টুরেন্টকে গুনতে হলো জরিমানা কোটি টাকার ইয়াবা নিয়ে চকরিয়ার ১ নারীসহ বাঁশখালীতে ৫ জন গ্রেপ্তার টেকনাফে ৬০ হাজার ইয়াবা সহ রোহিঙ্গা আটক আকাশ সম স্বপ্ন নিয়ে কক্সবাজার শিশু হাসপাতালের উদ্যোগ নিয়েছি : জেলা প্রশাসক করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় কঠোর জেলা প্রশাসন রাজধানীর পাইকারি বাজারে কমেনি সবজির দাম উখিয়া-টেকনাফের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক মোহাম্মদ আলী আর নেই
মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:৪৪ পূর্বাহ্ন

ইউএনও আসার ভয় দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিলো প্রতারক

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: নভেম্বর ১১, ২০২০ ৫:১০ অপরাহ্ণ | সম্পাদনা: নভেম্বর ১১, ২০২০ ৫:১১ অপরাহ্ণ

[ad_1]

ঝিনাইদহ, ১১ নভেম্বর – বেকারিতে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসবেন বলে ভয় দেখিয়ে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঝিনাইদহের শৈলকুপার ২ নম্বর মির্জাপুর ইউনিয়নের চরিয়ারবিল মিতু বেকারিতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতারণার স্বীকার বেকারি মালিক জামিরুল ইসলাম বলেন, ‘গত শনিবার বিকেলে স্থানীয় ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামান বাদশা মোবাইলে বলেন, “ইউএনও’র সঙ্গে তোমার কী হয়েছে, তোমার নাম্বার চাচ্ছে।” আমি তাকে নাম্বারটা দিলে একটু পরে ফোন আসে ইউএনও বলছি, আপনি কি বেকারিতে আছেন, আপনার ওখানে অভিযানে যাচ্ছি। এর কয়েক মিনিট পরে আরেকটি নাম্বার থেকে পুনরায় বলে আমি আসব নাকি নাম কেটে দিবো। তখন নাম কাটতে রাজি হওয়ায় আমাকে রকেটে ৫০ হাজার টাকা দিতে বলে। এরপর বিকাশের দোকানে রকেট না থাকায় ০১৭৯৩৬৬৯০০৩ নম্বারে দুই দফায় ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন তিনি। পরে জানতে পারি এটি ছিল ইউএনও’র নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা।’ বলে জানান।

আরও পড়ুন : রাজধানীতে বাবা-ছেলের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রতারণার স্বীকার হয়ে বেকারির ওই মালিক একটি বিকাশ ও দুটি মোবাইল নম্বার উল্লেখ করে শৈলকুপা থানায় গত রোববার একটি জিডি করেন।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রতারণার ঘটনায় থানায় জিডি হয়েছে কিনা তিনি জানেন না।

এ বিষয়ে ২ নম্বর মির্জাপুর ইউনিয়নের ৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামান বলেন, ‘চরিয়ারবিল মিতু বেকারি থেকে প্রতারণার মাধ্যমে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কথা বলে ৫০ হাজার টাকা নেওয়ার ঘটনা সত্য।’

এ বিষয়ে ইউএনও সাইফুল ইসলাম জানান, অভিযানের কথা বলে তার নাম ভাঙিয়ে টাকা নেওয়ার ঘটনা বেকারি মালিক তাকে জানাননি।

সুত্র : আমাদের সময়
এন এ/ ১১ নভেম্বর

[ad_2]

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::