তারিখ: মঙ্গলবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং, ১০ই আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জে.জাহেদ,চট্টগ্রাম ব্যুরো:

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যা বলেন পরবর্তীতে তাই হয় বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাৎ হোসেন।

সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে নগরীর নূর আহম্মদ সড়কে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ডা. শাহাদাৎ হোসেন বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন ও আদালতের ব্যাপারে ওবায়দুল কাদের যা বলে তাই পরে হয়ে যায়। খালেদা জিয়াকে আরেকটি সাজা দেয়ার জন্য কারাগারে আদালত বসানো হয়েছে।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘সংবিধানে স্পষ্টভাবে বলা আছে, অভিযুক্ত প্রত্যেক ব্যক্তি আইনের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত স্বাধীন ও নিরপেক্ষ আদালতে প্রকাশ্য বিচার লাভের অধিকারী হবেন।

ফৌজদারি কার্যবিধি ধারায়ও বলা আছে, আদালত উন্মুক্ত থাকবে। অথচ ১৫০ বছরের পুরোনো কারাগারে খালেদা জিয়ার জন্য আদালত বসানো হয়েছে।’

বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘বেগম খালেদার জিয়ার বাম হাত প্রায় অবশ হয়ে গেছে। ঘাড়েও প্রচণ্ড ব্যথা। তাকে থেরাপি দেয়ার জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সাবরিনা সুলতানাকে নিয়োগ দেয়া হলেও কারা কর্তৃপক্ষ তাকে বাদ দিয়ে আরেক জনকে দায়িত্ব দিয়েছে।

যেখানে একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে উন্নত চিকিৎসা পাওয়ার কথা সেখানে তাকে ম্যানুয়ালি দুর্বল থেরাপি দেয়া হচ্ছে।

খালেদা জিয়া জেল কোড অনুযায়ী এবং তার মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত।’

আদালতে কোর্ট বসানোর বিষয়ে গেজেট প্রকাশের ক্ষেত্রে নিয়ম মানা হয়নি দাবি করে তিনি বলেন, ‘দুই পক্ষের আইনজীবীর উপস্থিতিতে গেজেট প্রকাশের কথা থাকলেও এক্ষেত্রে তা মানা হয়নি।’

মানববন্ধন কর্মসূচিতে আরও বক্তব্য রাখেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিম উদ্দিন, কেন্দ্রীয় সদস্য সামশুল আলম, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসেম বক্কর, সহ- সভাপতি এম এ আজিজ প্রমুখ।

আপনার মতামত প্রদান করুন ::