শিরোনাম :
মঙ্গলবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২০, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

আদালতের আদেশ অমান্য করে পশ্চিম বাহারছড়ায় ভূমিহীনদের বসতি উচ্ছেদের পাঁয়তারা!

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: নভেম্বর ২, ২০২০ ২:০৭ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: নভেম্বর ২, ২০২০ ২:০৭ পূর্বাহ্ণ

কক্সবাজার পৌরসভার পশ্চিম বাহারছড়া (ডাক রেস্ট হাউস) এলাকায় প্রায় অর্ধশত বছরের দলিলি দখলি জমি ও বাড়ী-ঘর থেকে উচ্ছেদের পাঁয়তারা চলছে। সর্বশেষ রবিবারও (১ নভেম্বর) কয়েক দফা উচ্ছেদের চেস্টা চালানো হয়েছে। এ বিষয়ে আদালতের চলমান মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্থিতাবস্থা বজায় রাখার আদেশ থাকলেও তা মানছে না। যে কোন সময় উচ্ছেদ করা হবেএমন হুমকি দিচ্ছেন স্বয়ং মেয়র। এ নিয়ে জমির মালিকগণ উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠায় রয়েছে। জমির দীর্ঘ মেয়াদি লীজ গ্রহীতা সোহেল আজিজ, আবদুল্লাহ মোহাম্মদ ইউছুপ, আবুল মঞ্জুর, সহিদুল হক (বাবুল), তবারক হোছাইন, আবু বক্কর ছিদ্দিক, মোহাম্মদ আলী, শ্রী দিলীপ কুমার দাশ ও জাবেদ মোহাম্মদ শামসুল হুদা’র পক্ষে আমমোক্তার নাছির উদ্দিন এ বিষয়ে প্রতিকার পেতে প্রশাসন ও আদালতের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। জমির ৯ জন মালিকের পক্ষে নিয়োজিত আমমোক্তার নাছির উদ্দিন জানান, কক্সবাজার মৌজার ১ নং তপসীলের বিএস ২০ নং খতিয়ানের বিএস ৩০৭১ নং দাগের আন্দর .১০ একর জমি (বিরোধীয়)তে প্রায় অর্ধশত বছর ধরে ক্ষেতখামার ও বসতি করে তারা ভোগ দখলে আছেন।
যা কক্সবাজার পৌরসভার সাধারণ পরিষদের সিদ্ধান্ত মোতাবেক সকল প্রকাল কার্যক্রম সমাপ্ত করে বিগত ১৯৮৮ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ২৩১০ নং রেজিস্ট্রি লীজ দলিলমূলে প্রাপ্ত হন। তখন থেকে পৌরসভা বরাবর খাজনা আদায়পূর্বক উক্ত জমিতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোগ দখলে ছিলেন ও আছেন। সেখানে গৃহনির্মাণ ও ক্ষেতখামার করেছেন। সম্প্রতি জমির মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় পৌর কতৃপক্ষ তাদের জমি থেকে উচ্ছেদ করতে নানামুখি ফন্দিফিকির করছে। জমির খাজনা নিতে অস্বীকার করছে। জমি জবর দখল করতে ভাড়াটিয়া লোকজনের মাধ্যমে বিভিন্ন সময় হুমকি ধমকি প্রদান করা হচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৮ আগষ্ট বিকালে ঘরবাড়ি ও ক্ষেতখামার নষ্ট করে জমি দবর দখলের অপচেষ্টা চালায় পৌরসভা। ঘটনার পরে কক্সবাজার সদর সিনিয়র সহকারি জজ আদালতে অপর মামলা নং-৮৭/২০২০ দায়ের করেন জমির মালিকপক্ষ। এতে কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান, নির্বাহী প্রকৌশলী ও পৌরসচিবকে বিবাদি করা হয়। এরই মধ্যে কয়েক দফা উচ্ছেদের চেষ্টা চালানো হয় বলে জানান মালিক পক্ষে নিয়োজিত আমমোক্তার নাছির উদ্দিন। তিনি পশ্চিম বাহারছরা এলাকার আবদুল করিমের ছেলে। নাছির উদ্দিনের অভিযোগ, বৈধ লীজমূলে তারা জমি ভোগ দখলে আছেন। এরপরও উচ্ছেদ চেষ্টা করলে তারা আদালতের শরণাপন্ন হন। আদালতে মামলা চলমান অবস্থায় স্থিতাবস্থায় বজায় রাখতে গত ১৫ সেপ্টেম্বর নির্দেশও দিয়েছেন বিজ্ঞ বিচারক। কিন্তু সেই নির্দেশ অমান্য করে গত ২৯ অক্টোবর উচ্ছেদ করতে যায় পৌরসভার কিছু লোক। এ সময় তারা হুমকি দিয়ে চলে আসে। এরপর ১ নভেম্বর দুপুর দেড়টার দিকে আবারো উচ্ছেদের চেষ্টা চালায় মেয়র মুজিবের লোকজন। আদালতের কাগজপত্র দেখে উচ্ছেদ না করে চলে গেলে মেয়র মুজিব তাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। আমমোক্তার নাছিরের অভিযোগ মেয়র ভূমিহীনদের সম্পত্তি নিজেই কুক্ষিগত করতে আদালতের নির্দেশকে কোন ধরনের তোয়াক্কা করছেননা। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে জমির মালিকরা জীবন ও সম্পদ নিয়ে শংকা প্রকাশ করছেন। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করেছেন ভুক্তভোগিরা। এই বিষয়ে কক্সবাজার পৌরসভার কনজারভেন্সি পরিদর্শক কবির হোসেন জানান-তিনি পৌরসভার কর্মচারী। শুধুমাত্র মেয়রের নিদেশ পালন করছেন তিনি। এ বিষয়ে কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমানের মুঠোফোনে একাধিকবার চেস্টা করেও বন্ধ পাওয়ায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::