শিরোনাম :
স্বাস্থ্যবিধি না মানলে প্রয়োজনে কারাদন্ড দেয়া হবে-জেলা প্রশাসক চকরিয়ায় অবৈধ বসতি গুঁড়িয়ে দিয়ে এক একর সংরক্ষিত বনভূমি উদ্ধার কক্সবাজার সদরের ইসলামাবাদে কারের ধাক্কায় টমটম চালক নিহত পেকুয়ায় রাতে নির্মিত ৩টি অবৈধ স্থাপনা দিনে উচ্ছেদ লকডাউন আর না, সচেতন হোন-সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দিন পেকুয়ায় মাস্ক ব্যবহার না করায় ৯ জনকে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা কভিড-১৯ প্রণোদনা নিয়ে কক্সবাজারে ব্যাংক কর্মকর্তাদের সাথে সংলাপ শিশু ধর্ষণের দায়ে কুতুবদিয়ার এক ব্যক্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও এক লাখ টাকা অর্থদন্ড দাবি আদায়ে কর্মবিরতিতে কক্সবাজারের স্বাস্থ্য সহকারীরা করোনা প্রতিরোধে কক্সবাজারে ফ্রেন্ডশিপয়ের ‘সারি’ আইসোলেশন ও চিকিৎসা কেন্দ্র চালু
শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১১:৪১ পূর্বাহ্ন

অটোপাস নয়, মূল্যায়িত হচ্ছে শিক্ষার্থীরা

প্রতিবেদকের নাম::

প্রকাশ: অক্টোবর ২১, ২০২০ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ | সম্পাদনা: অক্টোবর ২১, ২০২০ ১:৪৫ পূর্বাহ্ণ

অটোপাস নয়, মূল্যায়িত হচ্ছে শিক্ষার্থীরা

[ad_1]

ঢাকা, ২১ অক্টোবর- করোনাভাইরাসের কারণে স্থাগিত পরীক্ষাগুলোর পরীক্ষার্থী অটোপাস হচ্ছে না, তারা মূল্যায়নের মাধ্যমে উত্তীর্ণ হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

বুধবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষার বিষয়ে ভার্চুয়াল প্রেস কনফারেন্সে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল বলেন, একটি কথা বার বার আসছে অটোপাস। কিন্ত এখানে অটোপাসের কোন বিষয় নেই। এখানে অটোপাস কেউ হচ্ছে না, মূল্যায়িত হচ্ছে। গঠিত কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী তাদের মূল্যায়নের ভিত্তিতে উত্তীর্ণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের কৃতকার্য-অকৃতকার্য হওয়ার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। কিন্তু উন্নত বিশ্বে কাউকে অকৃতকার্য করা হয় না। কারণ কেউ অকৃতকার্য হওয়ার মানে আমি প্রতিষ্ঠান হিসাবে তাদের কৃতকার্য করাতে পারিনি। তাই সেভাবেই তাদের মূল্যায়ন করা হয়। আমরাও সেদিকেই যাবো। ভবিষ্যতেও মূল্যায়নের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের স্কিল দেখতে হবে। কেউ কৃতকার্য না হলে কিন্তু সেটা আমাদেরই দুর্বলতা।

আরও পড়ুন:  মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের বার্ষিক পরীক্ষা বাতিল

আগামী বছরের এসএসসি পরীক্ষার বিষয় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেন, আমরা এখনও বলতে পারছি না সয়মতো আগামী বছরের সব পরীক্ষা নিতে পারব কিনা। তা নির্ভর করবে কোভিড পরিস্থিতির উপর। এখনও অনেকে স্বাস্থ্যবিধি মানে না, সমাবেশ করছে, মাস্ক ব্যবহার করেন না। আমরা সবাই যদি সচেতন থাকি, অবস্থা দ্রুত উন্নতি হবে। তখন আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারব। এখন এই পরিস্থিতিতে কোন কিছু প্রেডিক্ট করা সম্ভব না।

এ সময় অনলাইনে যুক্ত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মোঃ মাহবুব হোসেন, কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান।

সূত্র: বার্তা২৪

আর/০৮:১৪/২১ অক্টোবর



[ad_2]

কক্সবাজার পোস্ট.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
কক্সবাজার পোস্ট সব ধরনের আলোচনা-সমালোচনা সাদরে গ্রহণ ও উৎসাহিত করে। অশালীন ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য পরিহার করুন। এটা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ
এই জাতীয় আরো খবর::